নাটোরে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জেলা শিবির সভাপতি সহ ১০ নেতাকর্মী কারাগারে

natore-110শেখ তোফাজ্জ্বল হোসাইন, নাটোর প্রতিনিধি    :
নাটোরে হরতাল অবরোধের সময় ট্রাক ভাংচুর ও লুটপাটের মামলায় নাটোর সদর উপজেলার সদ্য নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক এবং জেলা শিবিরের বর্তমান ও সাবেক তিন সভাপতি সহ ১৯ দলের ১০ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বুধবার নাটোরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিচারক লিয়াকত আলী মোলা আবেদন না মঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আদালত সুত্রে জানা যায়, বেলা ১২ টার দিকে অভিযুক্তরা নাটোরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে হাজির হয়ে গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর মধ্যরাতে শহরের হরিশপুর এলাকায় হরতাল অবরোধের সময়ে ট্রাক ভাংচুর ও এক লাখ ২০ হাজার টাকা লুটপাটের অভিযোগে দ্রুত বিচার আইনে দায়ের করা মামলায় এই নির্দেশ দেয়া হয়। ট্রাক ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় ট্রাকের চালক আশরাফুল ইসলাম বাদী হয়ে নাটোর থানায় দ্রুত বিচার আইনে বিএনপি এবং জামায়াতের মোট ১৩ নেতাকর্মীকে আসামী করে মামলা করেন। মামলার নির্ধারিত তারিখ থাকায় অভিযুক্ত নাটোর সদর উপজেলা পরিষদের সদ্য নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ও স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক ফয়সাল ইসলাম আবুল ব্যাপারী, জেলা বিএনপির গ্রাম বিষয়ক সম্পাদক এনায়েত হোসেন চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক আব্দুর রহমান কাজল, পৌর যুবদল নেতা আব্দুল মালেক, যুবদল নেতা আব্দুস সালাম, যুবদল নেতা আব্দুর রাজ্জাক, নাটোর জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন খান, জেলা শিবিরের সভাপতি আলমগীর হোসেন, সাবেক শিবির সভাপতি আলী আল মাসুদ মিলন এবং সাবেক শিবির সভাপতি ও শহর জামায়াতের বর্তমান আমীর আতিকুর রহমান রাসেল সহ ১৯ দলের ১২ নেতাকর্মী জামিনের আবেদন করেন। বিচারক আবেদন শুনানী শেষে জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন খানের জামিন মঞ্জুর করেন এবং বাকী ১০ জনের জামিনের আবেদন না মঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।