‘উপজেলা নির্বাচনে জালভোট ও কেন্দ্র দখলের চেষ্টা ছিল’

12299_jlবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : ১৯শে ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত প্রথম পর্যায়ের উপজেলা নির্বাচনে কিছু কিছু এলাকায় জাল ভোট ও কেন্দ্র দখরের চেষ্টা ছিল বলে উল্লেখ করেছে ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপ। বিচ্ছিন্ন কিছু সহিংসতার ঘটনা ছাড়া উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ভোটারের অংশগ্রহণে সম্পন্ন্ হয়েছে বলে সংগঠনটির রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়। এ নির্বাচনে ৫৯.১৯ শতাংশ ভোট পড়েছে বলেও দাবি করেছে সংগঠনটি। শনিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থা ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনী মিলনায়তনে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করা হয়। সংগঠনটি জানায়, তাদের পর্যবেক্ষিত ৯.৭  শতাংশ ভোট কেন্দ্রে কিছুটা উত্তেজনা বা অসন্তোষ বিরাজ করেছে। তবে, বেশিরভাগ ভোটকেন্দ্রের সার্বিক পরিস্থিতি ভাল ছিল। ৯২ শতাংশ ভোটকেন্দ্রে নিরাপত্তা পরিস্থিতি দায়িত্বরত নিরাপত্তাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে ছিল। যদিও ৩.৭ শতাংশ ভোটকেন্দ্র থেকে নিরাপত্তাবাহিনীর কিছুসংখ্যক সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল। ইডব্লিউজি’র পর্যবেক্ষকগণ যে সকল কেন্দ্রে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছে, সেগুলোর মধ্যে ৬৩টি জাল ভোট দেয়ার ঘটনা দেখা গেছে। ৩৮ টি ঘটনা ঘটেছে যেগুলোতে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের দ্বারা ব্যালট পেপার বা ব্যালট বাক্স ছিনতাই অথবা সমগ্র ভোটকেন্দ্র দখলের চেষ্টা করা হয়েছে। ৪০টি ঘটনা পর্যবেক্ষিত হয়েছে যেগুলোতে ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তা বা নিরাপত্তা বাহিনী কোনো না কোনোভাবে প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছিলেন। পর্যবেক্ষণকৃত ভোটকেন্দ্রসমূহের মধ্যে ১৬টি কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ কার্যক্রম কিছু সময়ের জন্যে বন্ধ রাখা হয়েছিল। ৪.৫ শতাংশ ভোটকেন্দ্রের ৪শ গজের মধ্যে প্রার্থীর পক্ষে তার সমর্থকদেরকে প্রচারণা চালাতে দেখা গেছে যা নির্বাচনী আইনের পরিপন্থী। ভোটকেন্দ্রের  ভেতরে ইডব্লিউজি মোট ২০টি সহিংসতার ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেছে, যেগুলো ভোট কেন্দ্র দখলের চেষ্টা, জালভোট প্রদানের প্রচেষ্টায় সৃষ্ট গোলযোগ এবং ভোটারদেরকে ভয় দেখানোকে কেন্দ্র করে ঘটেছিল। ইডব্লিউজি’র ভ্রাম্যমান পর্যবেক্ষকগণ সংশ্ল্ষ্টি উপজেলাগুলোতে ভোটকেন্দ্রের বাইরে মোট ১১টি সহিংসতার ঘটনা ও ভোটারদেরকে ভোটকেন্দ্রে আনা-নেওয়া করার জন্য প্রার্থীর পক্ষ থেকে যানবাহনের ব্যবস্থা করার ১৭টি ঘটনা প্রত্যক্ষ করে। সংবাদ সম্মেলনে ইডব্লিউজি পরিচালক ড. মো. আব্দুল আলীম বলেন, প্রথম পর্বের ৯৭টি উপজেলার মধ্যে ইডব্লিউজি ২৫টি উপজেলায় ২০৩৫ জন পর্যবেক্ষক নিয়োগ করে। ইডব্লিউজির পর্যবেক্ষকগণ ভোটকেন্দ্র খোলার সময়কাল, ভোটগ্রহণ কার্যক্রম, ভোট কেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা ও ভোটগণনা, ভোটকেন্দ্রের বাইরের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে। সংবাদ সম্মেলনের সভাপতিত্ব করেন ইডব্লিউজির স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য ও খান ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক এডভোকেট রোখসানা খন্দকার।