Najrul_islam1

‘প্রভাবিত কর্মকর্তাদের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন অসম্ভব’

বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম :  এনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, সরকারের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা ক্ষমতাসীন দলের(আওয়ামীলীগ) নেতাদের দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছে। এসব প্রভাবিত কর্মকর্তাদের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন কখনোই সম্ভব নয়।আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এক নাগরিক স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রয়াত চিকিৎসক প্রথম নির্দলীয় সরকারের উপদেষ্টা অধ্যাপক এম এ মাজেদের স্মরণে বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ এই স্মরণসভার আয়োজন করে।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, সম্প্রতি বরগুনার ইউএনওর ঘটনায় প্রমাণ হচ্ছে,সরকারি দলের নেতাদের কথায় ডিসি, এসপি,ডিআইজি এবং অন্যান্য কর্মকর্তা,এমনকি বিচারকরাও প্রভাবিত হন। যদি তা না হতো তাহলে তাদের বদলি হতো না, তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করা হতো না।

নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার সম্পর্কে তিনি বলেন, এই নিয়ে দলের মধ্যে অনেক আলোচনা হয়েছে। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা হচ্ছে। সবার মত নিয়েই সহায়ক সরকারের রূপরেখা দেয়া হবে। আশা করি, এই প্রস্তাব বাস্তবায়নে  সবার সহযোগিতা পাবো।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ক্ষমতাসীনরা খুব ভালো করে জানে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে তাদের জেতার কোনো সম্ভাবনা নাই। তাই নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের রূপরেখা অর্জনে লড়াইয়ের সূত্রপাত হবে। এই লড়াইয়ে জনগণ আমাদের পাশে থাকবে।

তিনি বলেন, এই সরকারকে মানুষ আর দেখতে চায় না, তারা পরিবর্তন চায়। একটা গণতান্ত্রিক জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক দল হিসেবে আমরা পরিবর্তন চাই সাংবিধানিক ও গণতান্ত্রিক পন্থায়। এজন্য আমরা সুষ্ঠু নির্বাচনে ফর্মূলা আমরা দিতে চাই।

গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার সংগ্রামে পেশাজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য।

সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের আহ্বায়ক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের সভাপতিত্বে ও  সদস্য সচিব অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেনের পরিচালনায় আলোচনা সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজউদ্দিন আহমেদ, গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সদরুল আমিন, অধ্যাপক আখতার হোসেন খান, জাহাঙ্গীনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আবদুল লতিফ মাসুম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আবদুল মান্নান মিয়া, অধ্যাপক এম এ কুদ্দুস, অধ্যাপক মোস্তাক রহিম স্বপন, অধ্যাপক এসএম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, প্রকৌশলী রিয়াজুল ইসলাম রিজু, শিক্ষক-কর্মচারী ঐক্যজোটের অধ্যক্ষ সেলিম ভুঁইয়া, জাকির হোসেন, সাংবাদিক আবদুল হাই শিকদার, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, সৈয়দ আবদাল আহমেদ, কাদের গনি চৌধুরী, জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক জোটের রফিকুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।